আশরাফুল আলম

ডেস্ক কন্ট্রিবিউটর, বিডি২৪লাইভ

ওহে মুসলিম আপনাদের বলছি!

০৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১০:৪৫:৪৩

আমরা যে মুসলমান তার প্রমাণ কিন্তু শুধু গরু খাওয়ার মধ্য সীমাবদ্ধ নয়। আমাদের আদর্শ, নৈতিকতা, কৃষ্টি কালচার, ধর্ম, সম্পূর্ণ অন্য ধর্ম থেকে আলাদা । আমাদের ধর্মের মূল চালিকাশক্তি হলো কুরআন মাজিদ ও হাদিস শরীফ। যা অন্য ধর্ম অবলম্বীদের দেয়া হয়নি । তাই অন্য ধর্ম, মানবতা বা মানুষ প্রেম সম্বন্ধে মুসলমানদের থেকে পিছিয়ে রয়েছে।

বাদ দিন তাদের কথা। আমরা যারা মুসলিম দাবিদার তাদের কি কোন দায়িত্ব নেই? আল্লাহ আমাদের বড় দায়িত্ব দিয়ে এই পৃথিবীতে পাঠিয়েছেন। আমরা কি তা মানি? মানা না মানা এটা আমাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার। তবে কুরআন সুন্নাহ অনুযায়ী আমরা আল্লাহর প্রতিনিধি, আর আমাদের উপর অনেক দায়িত্ব দিয়ে এই ধরার মাঝে প্রেরণ করেছেন আল্লাহ । আর এই দায়িত্ব সঠিক ভাবে পালন না করতে পারলে, আল্লাহর বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে।

আল্লাহ বলেন, তোমার ধন সম্পদের উপর গরিবের হক রয়েছে। এটা তোমার দয়া নয়, গরিবের প্রাপ্য। এটা মানা না মানা আপনাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার, কিন্তু আল্লাহ বিচার করবেন সেটা কিন্তু সত্যি । আল্লাহ বলেন, তুমি যাহা খাবে তাহা তোমার ভাইদের কে খাওয়াবে, তুমি যাহা পড়বে তোমার ভাই বোনদের কে তাহা পরতে দেবে । আজ আমাদের মুসলিম ভাই বোনদের মধ্যে কিছু ভাই বোন আছে যারা খুদার তাড়নায় আর্তনাদ করছে এবং আমার মুসলিম বোন ও ভাই এতটাই অসহায় যে, বৃষ্টির মধ্যে মাথা গোজার ঠাঁই টুকু নেই ।

আমরা মিডিয়াতে দেখেছি যে, এত কষ্টের মাঝেও মুসলিম নারীরা নিজেদের সম্ভ্রম ধরে রেখেছে। বৃষ্টির মধ্য নাফ নদীর পারে বাংলাদেশের বর্ডারে বোখরা পড়ে বাচ্চাদের নিয়ে এতিম এর মত দাঁড়িয়ে রয়েছে।

মায়ানমার সরকার তাদের উপর এতটাই দমন পীড়ন চালাচ্ছে যে, তারা তাদের ঘরবাড়ি ফেলে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় চাচ্ছে। তাদেরকে মায়ানমার সরকার নাম দিয়েছেন রোহিঙ্গা আসলে মূল কথা হলো তারা মুসলিম এটাই তাদের দোষ। আমরা তাদের রোহিঙ্গা বলবো না। বলবো তারা আমাদের মুসলিম ভাই বোন। আর যেহেতু আমার ভাই বোন আজ অসহায় বিপদগ্রস্থ ক্ষুধার্ত তাই আমাদের উপর দায়িত্ব হচ্ছে তাদের সাহায্যে এগিয়ে আসা। যাতে করে আল্লাহ যদি আমাদের জিজ্ঞাসা করেন, হে আমার বান্দা তোমার দায়িত্ব তুমি কতটুকু পালন করেছ? তখন যেন হাশরের দিনে আটকে না যাই। তাই আসুন আমরা বাড়তি আরাম-আয়েশের একদিনের টাকা দিয়ে আমার অসহায় ভাই-বোনদের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেই ।

আমরা তো একটা চায়ের দোকানে বসে, চা-সিগারেট-পান খেয়ে ৫০-৬০ টাকা এমনিতেই খরচ করি । আর আমার মুসলিম ভাইদের মধ্যে এমন কিছু ভাইয়েরা আছেন যারা রেস্টুরেন্ট এ চিকেন বার্গার পিজা খান। তার থেকে কিছু অর্থ এই মুসলিম ভাই-বোনদের কে দিন। এই সাহায্য পরকালের মুক্তির মাধ্যম হতে পারে?

লেখক: এম এম আশরাফুল আলম।

খোলা কলামে প্রকাশিত সব লেখা একান্তই লেখকের নিজস্ব মতামত। এর সাথে পত্রিকার কোন সম্পর্ক নেই।

বিডি২৪লাইভ/এমএমএ/এমআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: