শিক্ষামন্ত্রীর পা ধরে শিক্ষিকার কান্না!

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৩:১০:০০

যশোরে এমপিওভুক্তির দাবিতে গতকাল শিক্ষামন্ত্রীর পা ধরে কেঁদে ফেলেন এক শিক্ষক

গ্রীষ্মকালীন জাতীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা উদ্বোধন করতে গতকাল বৃহস্পতিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) যশোর যান শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

উদ্বোধন শেষে ফেরার পথে কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের অপ্রত্যাশিত ‘আকুতির’ মধ্যে পড়ে যান তিনি।

এক নারী শিক্ষিকা দাবি আদায়ে মন্ত্রীর পা জড়িয়ে কাঁদতে থাকেন। কয়েক শিক্ষক শুয়ে পড়েন মন্ত্রীর গাড়িবহরের সামনে।

যশোর প্রেস ক্লাবের সামনে দুপুর ১২টার দিকের ঘটনা এটি। ঘটনার পর শহরে বিষয়টি নিয়ে বেশ আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নন এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহের প্রায় দুই হাজার শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী সকাল থেকে মানববন্ধন করছিলেন। এমপিওভুক্তির দাবিতে এ কর্মসূচি পালন করছিলেন তাঁরা।

দুপুর ১২টার দিকে উপশহরে জাতীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা উদ্বোধন শেষে সার্কিট হাউসে ফিরছিলেন শিক্ষামন্ত্রী। মন্ত্রীর গাড়িবহর প্রেস ক্লাবের সামনে পৌঁছালে মানববন্ধন থেকে কয়েকজন শিক্ষক ছুটে গিয়ে রাস্তার ওপর শুয়ে পড়েন। গাড়িবহর থেমে যায়।

মন্ত্রী গাড়ি থেকে নামেন। বেশ জটলার সৃষ্টি হয়। এ সময় এক নারী শিক্ষিকা মন্ত্রীর পা জড়িয়ে ধরে কান্নাকাটি শুরু করেন। তিনি দাবি আদায়ে মন্ত্রীর সহযোগিতা চান।

এ সময় মন্ত্রী তাঁর মাথায় হাত বুলিয়ে আশ্বস্ত করেন। পুলিশ ছুটে গিয়ে ওই শিক্ষককে সরিয়ে নেয়।

মন্ত্রীর সফরসঙ্গী শিক্ষাসচিব সোহরাব হোসাইন এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

পরে শিক্ষামন্ত্রী শিক্ষকদের উদ্দেশে বলেন, ‘আপনারা যে আচরণ করেছেন, তাতে শিক্ষক সমাজের মানহানি হয়। আমি আপনাদের দাবিদাওয়ার ব্যাপারে অর্থমন্ত্রীর হাত-পায়ে ধরে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তিনি কিছুটা নরম হয়েছেন। অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে অর্থ ছাড় দেওয়া হয়নি বলে দাবি মানা সম্ভব হচ্ছে না। আমি শিক্ষকদের জীবনমান উন্নয়নে দোজখে যেতে রাজি আছি।’

বিডি২৪লাইভ/এআইআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: