শাহিনুর রহমান শাহিন

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

সংস্করণ চলছে জাবির অমর একুশে ভাস্কর্যের

১৯ অক্টোবর, ২০১৭ ১৬:০০:০০

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা আন্দোলনে শহীদদের স্মরণে নির্মিত অমর একুশে ভাস্কর্যটি অবশেষে শিক্ষার্থীদের দাবির ফলে অযন্ত, অবহেলা থেকে প্রাণ ফিরে পাচ্ছে। কালের আর্বতে অনেক কিছুই সংস্কার করা হয়েছে এখানে কিন্তু একবারও অমর একুশের ভাগ্য বদলায় নি। অত:পর দীর্ঘ ২৬ বছর পর অপেক্ষার পালা শেষ হচ্ছে।

বৃস্পতিবার (১৯ অক্টোবর) দুপুর ১২.৩০ টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের সামনে অবস্থিত এই ভাস্কর্যটির সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে। সম্প্রতি শিল্পী জাহানারা পারভীনের সাথে আলোচনার পর তার তত্ত্বাবধানেই ভাস্কর্যটি সংস্কার করা হচ্ছে বলে নিশ্চিত করেছেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম। এর আগে গত ২৬শে মার্চ সন্ধ্যায় সপ্তাহব্যপী নাট্যোৎসব সম্মাননা স্মারক প্রদান অনুষ্ঠানের ২য় দিন ভাস্কর জাহানারা পারভীনের উপস্থিতিতে উপাচার্য এটি সংস্কারের আশ্বাস দিয়েছিলেন।

১৯৯১ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের সামনে মহান ভাষা শহীদদের স্মরণে শিল্পী জাহানারা পারভীনের নকশার ভিত্তিতে ‘অমর একুশে’ ভাস্কর্যটি নির্মাণ করা হয়। নির্মাণের পর থেকে সংস্কার না করা ও প্রয়োজনীয় রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে ভাস্কর্যটি দূরাবস্থার দিকে যাচ্ছিল। প্রশাসনকে বারবার অবহিত করার পর এ বিষয়ে এই প্রথম পদক্ষেপ নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

একুশে বাংলাদেশের ভাষা আন্দোলনের স্মৃতি রক্ষার্থে বাংলাদেশে যেসব ভাস্কর্য নির্মাণ করা হয়েছে তার মধ্যে অন্যতম একটি হলো জাহাঙ্গীরনগরের অমর একুশে ভাস্কর্যটি। মাতৃভাষা বাংলার জন্য যেসব দামাল ছেলে ১৯৫২ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারি রাজপথে অকাতরে রক্ত ঢেলে দিয়েছে তাদের স্মৃতিকে ধারণ করে ভাস্কর্যটি নির্মাণ করা হয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে।

ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস ধারণকারী ভাস্কর্যটি মেরামতের অভাবে হারিয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়ে উঠেছিল। প্রতিদিন হাজারো দর্শনার্থী আসে এই ক্যাম্পাসে। দর্শনার্থীদের অন্যতম প্রধান আগ্রহ এই ভাস্কর্যটি। কিন্তু সংস্কারের অভাবে ভেঙ্গে পড়ছিল ভাষা আন্দোলনের স্মারক ভাস্কর্যটি। প্রায়ই খসে, খসে পড়তে দেখা গেছে এর আস্তরণ। সাধারণ শিক্ষার্থী এবং বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের পক্ষ থেকে একাধিকবার দাবি জানানোর ফলে অবশেষে ভাস্কর্যটির মেরামত কাজ শুরু হলো।

সংস্কারের বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম বলেন, অমর একুশে ভাস্কর্যটি জাহাঙ্গীনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সম্পত্তি। অনেক আগে এটি সংস্কার করার কথা ছিল। আমরা মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয় ও সংস্কৃতি মন্ত্রনালয়সহ বেশ কয়েকটি জায়গায় কথা বলেছি। আশা করি অতি দ্রুত ভাস্কর্যটির সংস্কার কাজ শেষ হবে।

বিডি২৪লাইভ/এইচকে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: