কামরুজ্জামান

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

ঝিনাইদহকে ২-১ গোলে হারিয়ে ফাইনালে চুয়াডাঙ্গা

২৩ অক্টোবর, ২০১৭ ০২:০০:০০

টান টান উত্তেজনা ও গ্যালারি ভরা দর্শক উপস্থিতির মধ্য দিয়ে ঝিনাইদহ জেলা দলকে ২-১ গোলে পরাজিত করে জেলা প্রশাসক ফুটবল টুর্নামেন্টে ফাইনালে উন্নীত করেছে স্বাগতিক চুয়াডাঙ্গা। খেলার শুরুতে স্বাগতিক চুয়াডাঙ্গা অনেকটা ফুরফুরে মেজাজে খেলতে শুরু করে। খেলা চলাকালে ৪ মিনিটের মাথায় ঝিনাইদহ জেলা দলের পক্ষে ১২ নং জার্সিধারী বিদেশী খেলোয়ার প্যাট্রিক প্রতিপক্ষের জালে বল জড়িয়ে দলকে ১-০তে এগিয়ে নেন। এরপর পরই ডি বক্সের ভিতরে চুয়াডাঙ্গার এক খেলোয়াড়কে ফাউল করায় ট্রাইবেকারের সুযোগ পায় চুয়াডাঙ্গা জেলা একাদশ। ট্রাইবেকারের সুযোগেই ১২ মিনিটের মাথায় বিদেশী খেলোয়ার ১৫ নং জার্সিধারী ওয়ালসন ঝিনাইদহের গোলকিপারকে বোকা বানিয়ে জালে বল দিয়ে দলকে ১-১ এ সমতায় ফেরান।

খেলার মধ্য বিরতির পর আবারো দুই দলের মধ্যে শুরু হয় হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। লড়াইয়ের এক পর্যায়ে আবারো ট্রাইবেকারের সুযোগ পায় চুয়াডাঙ্গা জেলা একাদশ। খেলার দ্বিতীয়ার্ধের ১৩ মিনিটে ১০ নং জার্সি পরিহিত বিদেশী খেলোয়ার কিংস ঝিনাইদহের জালে গোল জড়িয়ে দলকে ২-১ এ এগিয়ে নেয়।

এর আগে খেলার ৩০ মিনিটের মাথায় ঝিনাইদহ জেলা একাদশের বিদেশী খেলোয়ার নুর মোহাম্মদ ফাউলের অপরাধে লালকার্ড পেয়ে মাঠ ত্যাগ করে।

হয়তো ভাগ্য সহায় ছিলো চুয়াডাঙ্গা একাদশের। তাইতো রেফারির শেষ বাশি বাজার সাথে সাথে ফাইনালে উঠার উল্লাসে মেতে উঠে দর্শক গ্যালারিতে থাকা হাজার হাজার দর্শক।

জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার কায়সার হামিদ মাঠে উপস্থিত থেকে খেলা উপভোগ করেন। আর দুপুর থেকে চুয়াডাঙ্গায় ফুটবলপ্রেমী নারী পুরুষের ঢল নেমেছিল চুয়াডাঙ্গা স্টেডিয়ামে। এসময় স্টেডিয়ামে দর্শকে কানাই কানাই পূর্ণ হয়ে ওঠে। দর্শকরা দীর্ঘ লাইন দিয়ে খেলা দেখতে মাঠে প্রবেশ করেন। চুয়াডাঙ্গা ও তার আশে-পাশের গ্রাম থেকে মানুষ দলে দলে খেলা দেখতে আসে। চুয়াডাঙ্গার ক্রীড়াঙ্গনে যেন প্রাণ ফিরে পেয়েছে। খেলায় ষ্টেডিয়ামে দর্শক ধারণ ক্ষমতা বেশি হওয়ায় ডিশ ক্যাবলের মাধ্যমে ষ্টেডিয়ামের বাইরে ও শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বড় পর্দায় খেলা দেখানো হয়। জেলা প্রশাসক গোল্ডকাপ ফুটবলে দুইটি গ্রুপে চুয়াডাঙ্গাসহ মোট ১৬টি জেলাদল নকআউট পদ্ধতিতে অংশ গ্রহণ করছে। সোমবার একই ভেন্যুতে জয়পুরহাট জেলা দল সিরাজগঞ্জ জেলা দলের মুখোমুখি হবে।

বিডি২৪লাইভ/এস এ

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: