শাহিন আলম রোহান

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

গোল্ড অ্যাওয়ার্ড লাভ করছে জাবির ৮ শিক্ষার্থী

২২ নভেম্বর, ২০১৭ ১৬:৫৮:০০

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আট শিক্ষার্থী ডিউক অব এডিনবরা ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে গোল্ড অ্যাওয়ার্ড লাভ করেছেন। রাজধানীর বারিধারায় ব্রিটিশ হাই কমিশানারের আয়োজনে নিজস্ব কার্যালয়ে এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে এ পঞ্চম গোল্ড অ্যাওয়ার্ড পুরস্কার প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিট্রিশ প্রিন্সেস সোফিয়া, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রিটিশ হাইকমিশনার আলিসন ব্যাংক, ডিউক অব এডিনবার্গের এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের প্রধান স্যু ওয়াকার এবং বাংলাদেশ প্রধান খন্দকার মোহাম্মাদ শরীফুল হুদা।

এ সময় তরুণদের নেতৃত্বে গড়ে তোলার জন্য ডিউক অব এডিনবরা ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ডের গুরুত্ব ব্যক্ত করে বিট্রিশ প্রিন্সেস সোফিয়া বলেন, তরুণদের নেতৃত্ব গড়ে তুলতে এবং মেধার সার্বিক বিকাশে এই অ্যাওয়ার্ড সহায়ক ভূমিকা পালন করে আসছে।

অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত আট শিক্ষার্থী হলেন: আব্দুল্লাহ আল নোমান, হেদায়েত ইসলাম শাকিল, ফাতিমা কবির স্বর্ণা, খন্দকার আনিকা আফরোজ, রাহাত আল ফয়সাল, মাসুদুর রশীদ, সৈয়দ মোহাম্মাদ আতিক নুর, মোহাম্মদ ওয়ারেসুল হাসান। পুরস্কার প্রাপ্তরা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের ৪০তম আর্বতনের শিক্ষার্থী।

গোল্ড অ্যাওয়ার্ড পুরস্কার প্রাপ্ত কয়েকজন শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, কর্মক্ষেত্রে দক্ষতার উন্নয়ন, সেবা প্রদান, শারীরিক দক্ষতা বৃদ্ধি এবং বিপদজ্জনক জায়গায় ভ্রমণ করতে হয় গোল্ডেন অ্যাওয়ার্ড জন্য। কর্মক্ষেত্রে দক্ষতার বৃদ্ধির জন্য এসপিএসএস, ইলাসট্রেটর, স্কেচ আপসহ আরও বিভিন্ন ধরনের কাজের মাধ্যমে দক্ষতার প্রমাণ করেছে।

সেবা প্রদানের জন্য বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে আওতায় ভলান্টারি কাজে অংশগ্রহণ করেছে। শারীরিক দক্ষতা প্রদর্শনের জন্য সাতার, সাইক্লিং, ব্যাডমিন্টনসহ আরও বিভিন্ন খেলায় অংশগ্রহণ করেছে। সর্বশেষ ভারতে দুঃসাহসিক ১৫ দিনের ভ্রমণের মাধ্যমে তারা এই গোল্ড অ্যাওয়ার্ড পুরষ্কারটি লাভ করেছেন। ২০১৪ সাল থেকে এ অভিযানের যাত্রা শুরু। প্রথমে ব্রোঞ্জ তারপর সিলভার এবং সর্বশেষ গোল্ড অ্যাওয়ার্ড অর্জন মাধ্যমে নিজেদের দক্ষতার প্রমাণ করেছেন জাবির অকুতোভয় আট শির্ক্ষাথী।

অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে গোল্ড অ্যাওর্য়াড প্রাপ্ত রাহাত আল ফয়সাল বিডি২৪লাইভকে বলেন, ব্রোঞ্জ তারপর সিলভার অ্যাওয়ার্ডের সকল ধাপগুলো সফলভাবে অতিক্রম করার পরই আমরা গোল্ড অ্যাওয়ার্ড পেয়েছি। গতানুগতিক পড়াশুনার চেয়ে এই অ্যাওয়ার্ড আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করতে অনেকটা সাহায্য করেছে।

এদিকে গোল্ড অ্যাওয়ার্ড পুরস্কারপ্রাপ্ত খন্দকার আনিকা আফরোজ তার অনূভুতি প্রকাশ করতে গিয়ে বিডি২৪লাইভকে বলেন, বিট্রিশ আ্যাম্বাসি কর্তৃক আমন্ত্রণে ব্রিটিশ হাইকমিশনারের বাসভবনে জাকজমক পূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে গোল্ড অ্যাওর্য়াড পুরস্কার পাওয়া একদিকে যেমন গর্বের অন্যদিকে আনন্দেরও। যুক্তরাজ্য ভিত্তিক ডিউক অব এডিনবার্গ ফাউন্ডেশন ব্রিটিশ রয়াল পরিবার দ্বারা পরিচালিত। ১৯৫৬ সাল থেকে যাত্রা শুরু করে ১৪৪টিরও বেশি দেশে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

এর মাধ্যমে সারা বিশ্বে কাজের ক্ষেত্রে তরুণদের আত্মবিশ্বাসী এবং সামজিক কাজে দক্ষতা বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করছে। তরুণদের নিজ দেশের বিভিন্ন সম্প্রদায়ের ভাষা, সংস্কৃতি জানার পাশাপাশি বিশ্বের মাঝে নিজ দেশকে পরিচয় করে দিচ্ছে। এখন পর্যন্ত বিভিন্ন দেশের ৬ কোটি তরুণ স্বেচ্ছাসেবী এবং চ্যালেঞ্জিং বিভিন্ন কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করেছে। এ বছর বাংলাদেশে থেকে ২৬০ জন গোল্ড অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছে বলে জানা যায়।

বিডি২৪লাইভ/এইচকে

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: