প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

যে কারণে আইভী-শামীম ওসমান গ্রুপের সংঘর্ষ

১৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ২০:০৬:৪১

নারায়ণগঞ্জের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী ও এমপি শামীম ওসমান গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এঘটনায় আইভীসহ শতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার (১৬ জানুয়ারি) বিকেল ৫টার দিকে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ‘হকার মুক্ত ফুটপাত চাই’ স্লোগান ধরে লোকজন নিয়ে চাষাঢ়ার দিকে হেঁটে আসছিলেন সেলিনা হায়াৎ আইভী। এ সময় সায়েম প্লাজা থেকে আইভীর লোকজনের ওপর বৃষ্টির মতো ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা হয়। পিস্তল উঁচিয়ে ফাঁকা গুলিও ছোড়া হয়। এঘটনায় ধাক্কাধাক্কিতে সড়কে পড়ে যান সেলিনা হায়াৎ আইভী। তাঁর পায়ে ইটের আঘাত লেগেছে। সেখান থেকে তিনি সায়েম প্লাজার পাশে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবে গিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে অভিযোগ করেন, সাংসদ শামীম ওসমানের নির্দেশে এ হামলা চালানো হয়েছে।

স্থানীয়রা আরো জানায়, নগরীতে হকার উচ্ছেদ নিয়ে নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়ায় নগর ভবনে সমাবেশ ডেকেছিলেন মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী। পরে হকার উচ্ছেদের বিরুদ্ধে পাল্টা কর্মসূচি ডাকেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান। সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই এ সংঘর্ষ হয়।

কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শীর ভাষ্য, বিকেল পৌনে ৫ টার দিকে আইভী রহমান তিন হাজারেরও বেশি সমর্থকদের নিয়ে মিছিল করে প্রেসক্লাবে দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় শামীম ওসমানের অনুসারী হকাররা তাদের ওপর হামলা করে। হামলার সময় ফাঁকা গুলির শব্দও শোনা গেছে।

নারায়ণগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রাজ্জাক জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ঘটনাস্থলে রয়েছে। সংঘর্ষের সময় দুই পক্ষ ইট-পাটকেল ছুঁড়লে অনেকে আহত হন। তবে গুরুতর আহত কেউ নেই। আইভী সামান্য আহত হয়েছেন।

এ ছাড়াও এই সংঘর্ষের ঘটনায় কয়েকজন সংবাদকর্মীও আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

বিডি২৪লাইভ/এমআই

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: