প্রচ্ছদ / বিনোদন / বিস্তারিত

অবশেষে সম্মতি জানালেন শাকিব-অপু!

১৮ মার্চ, ২০১৮ ১৯:২১:৪৩

ঢাকাই চলচ্চিত্রের অন্যতম জনপ্রিয় জুটি শাকিব-অপু। ব্যক্তিগত সম্পর্কের টানাপোড়নে দর্শকরা এই জুটিকে আর দেখছে এক সঙ্গে দেখছে পারছেন না। ইতোমধ্যে তাদের বৈবাহিক বিচ্ছেদও হয়েছে। তাদের এই বৈবাহিক সম্পর্কের টানাপোড়নের কারণে বেশ বিপাকেই আছেন কিছু পরিচালক ও প্রযোজক। কেননা তাদের নিয়ে কিছু ছবির কাজ শুরু করেছিলেন কিন্তু এখন পর্যন্ত শেষ হয়নি।

শাকিব-অপু জুটির লাভ ২০১৪, মা, মাই ডার্লিং প্রভৃতি ছবির প্রায় ৭০ শতাংশ শুটিং শেষ হয়েছে। তবে ছবি কাজ শেষ করেন নি এখনও। এর মধ্যে শাকিব-অপুর বিয়ে ও বিচ্ছেদ নিয়ে ঘটে গেল অনেক ঘটনা।

শাকিব-অপুর দ্বন্দের কারণে অনেক দিন ধরেই আটকে আছে এই জুটির কাজ শেষ না হওয়া ছবিগুলো। যার ফলে বিশাল অঙ্কের লোকসানের মুখে পড়তে যাচ্ছিলেন এসব ছবির প্রযোজকরা। যার ফলশ্রুতিতে আদালতের দ্বারস্থ হওয়ার চিন্তা করেছিলেন তারা। তবে এর মাঝেই শোনা গেলো নতুন খবর।

অসমাপ্ত ছবি গুলোর কাজ শেষ করতে প্রস্তুত আছেন অপু বিশ্বাস।অপু বিশ্বাসের সাথে কথা বলে তিনি বিডি২৪লাইভে বলেন, ‘আমি প্রথমেই আমার অসমাপ্ত ছবির পরিচালক ও প্রযোজকদের কাছে ক্ষমা চাচ্ছি। আর তাদেরকে আমি ধন্যবাদ জানাই কেননা মাতৃত্ব সময় তারা আমাকে বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করেছেন। আমি এখন তাদের ছবি গুলোর কাজ শেষ করার জন্য প্রস্তুত আছি’

এদিকে ‘মাই ডার্লিং’ ছবির পরিচালক মনতাজুর রহমান আকবর বলেন, ‘অপুর সঙ্গে কথা হয়েছে। তিনি রাজি আছেন। শাকিবের সঙ্গেও কথা বলব।’

অন্যদিকে বাংলাদেশের একটি দৈনিক পত্রিকাকে ছবি গুলোর বিষয়ে শাকিব জানান, আমি অনেক আগেই কয়েকবার শিডিউল দিয়েছি কিন্তু তাঁরা শিডিউল বারবার পরিবর্তন করেছেন। হতে পারে ফান্ড জোগাড় না হওয়ায় এমন হয়েছে। তবে হ্যাঁ আমি ছবি গুলোর কাজ করে দেব। একটু দেরি হলেও অন্য ছবির শুটিংয়ের ফাঁকে সময় বের করে কাজগুলো করতে হবে আমাকে।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল বিয়ে করেন শাকিব-অপু কিন্তু ৯ বছর বিয়ের খবর গোপন রাখেন তারা। অবশেষে গত বছরের ১০ এপ্রিল একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে ছয় মাস বয়সী ছেলে আব্রামকে সঙ্গে নিয়ে হাজির হন অপু। আর এরপর থেকেই তাদের সম্পর্কের অবনতি হয়। যার ইতি হয় গেল গত ১২ মার্চ বিচ্ছেদের মাধ্যমে।

বিডি২৪লাইভ/এএ/এমআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: