প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

আরমান হোসেন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

তরুণ ভোটারদের দেয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেনি ইসি

২২ মার্চ, ২০১৮ ২৩:১০:২৩

ছবি : প্রতীকী

গত ফেব্রুয়ারি থেকে কোটি তরুণ ভোটারদের মধ্যে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) প্রদানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল নির্বাচন কমিশন। কিন্তু আউট সোর্সিংয়ের মাধ্যমে লেমিনেটেড আইডি কার্ড সঠিকভাবে উৎপাদনে ব্যর্থ হওয়ায় প্রতিশ্রুতি রাখতে পারছেনা সাংবিধানিক এ প্রতিষ্ঠানটি।

ইসি সূত্র জানায়, স্মার্ট টেকনোলজিস বিডি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে প্রাথমিক ভাবে ৯৩ লাখ লেমিনেটেড কার্ড উৎপাদনের জন্য চুক্তি করে ইসি। কিন্তু সঠিকভাবে এনআইডি উৎপাদনে ব্যর্থ হওয়ায় প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে চুক্তিবাতিল করার সিদ্ধন্ত নিতে যাচ্ছে ইসি। ফলে কোটি তরুণ ভোটার অনিশ্চয়তায় পরছেন।

গত ১৮ জানুয়ারি কমিশন সভা শেষে আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে কমিশনের সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ বলেছিলেন, ২০১২ সালে যারা ভোটার হয়েছেন এবং এখনও কোনও জাতীয় পরিচয়পত্র পাননি, ফেব্রুয়ারির ১ তারিখ থেকে বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে তাদেরকে জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। ২০১২ সালের পরে নিবন্ধিত তরুণ এসব ভোটারকে স্মার্টকার্ড দেয়ার লক্ষ্য থাকলেও তা প্রস্তুত করা নিয়ে দেখা দিয়েছে জটিলতা। তাই একাদশ জাতীয় নির্বাচনের আগে তা সম্ভব হচ্ছে না। এজন্য কমিশন সভায় দেশের এই তরুণ নাগরিকদের লেমিনেটেড জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি কার্ড) দিতে সিদ্ধান্ত হয়।

ইসি সূত্র জানায়, লেমিনেটেড জাতীয় পরিচয়পত্র উৎপাদনের জন্য স্মার্ট টেকনোলজিস বিডি লিমিটেডের সঙ্গে ৮ কোটি ৯৬ লাখ ২৮ হাজার ৪০০ টাকা চুক্তি হয়। চুক্তি অনুযায়ী গত ফেব্রুয়ারি থেকে লেমিনেটেড কার্ড ইসির কাছে সরবরাহ করার কথা প্রতিষ্ঠানটির। কিন্তু ওই প্রতিষ্ঠানের সরবরাহকৃত কার্ড অতি নিম্নমানের। কার্ড তৈরির কাগজে ময়লার দাগ পাওয়া যায়। প্রিন্টের মানও খারাপ। ইসির অভ্যন্তরীণ তদন্তে কার্ড প্রিন্টে প্রতিষ্ঠানটির খামখেয়ালীপনার প্রমাণ মিলেছে। এ কারণে ইসি তাদের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করতে যাচ্ছে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে প্রথমবারের মতো ভোট দিতে নিবন্ধিত এক কোটি ১৮ লাখের বেশি তরুণ নাগরিককে স্মার্টকার্ডের পরিবর্তে লেমিনেটেড জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ইসি।

সূত্র জানায়, তরুণ ভোটারদের হাতেই একাদশ সংসদ নির্বাচনের ভোটে জয়-পরাজয়ের হিসাবনিকাশ নির্ভর করবে। অথচ এমন কোটি নাগরিকের হাতে জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়ার বিষয়টি পাঁচ বছর ধরে ঝুলে আছে। এ নিয়ে দুর্ভোগে পড়ছেন নাগরিকরা। বিষয়টি মাথায় নিয়ে লেমিনেটেড কার্ড দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছিল ইসি।

সর্বশেষ কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ নেতৃত্বাধীন ইসি স্মার্টকার্ড দেয়ার কথা বলে লেমিনেটেড এনআইডিও তাদের হাতে দেয়নি। তবে কে এম নূরুল হুদা নেতৃত্বাধীন ইসি দায়িত্ব নেয়ার পর স্মার্টকার্ড বিতরণেও শম্বুক গতির মধ্যে দ্রুত এনআইডি দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়। এরপর ১২তম কমিশন সভা থেকে তাদের লেমিনেটেড এনআইডি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ইসি।

যেহেতু স্মার্টকার্ড দেয়া বিলম্বিত হচ্ছে, সুতরাং ২০১২ সালের পরে যেসব ভোটার বা তরুণ প্রজন্মের ভোটার রয়েছে এমন এক কোটি ১৮ লাখ ভোটারকে লেমিনেটেড জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। লেমিনেটেড জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়ার পাশাপাশি পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে তাদের স্মার্টকার্ডও দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

২০০৮ সালে ছবিসহ ভোটার তালিকা প্রণয়নের পর নবম সংসদে ভোটার ছিল ৮ কোটি ১০ লাখেরও বেশি। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের সময় দশম সংসদে ভোটার ছিল ৯ কোটি ১৯ লাখের বেশি। বর্তমানে ১০ কোটি ১৮ লাখেরও বেশি নাগরিক ভোটার তালিকাভুক্ত রয়েছেন। এবার হালনাগাদে এ তালিকা থেকে বাদ পড়েছে মৃত ১৭ লাখেরও বেশি ভোটার।

জানুয়ারিতে নতুন করে যোগ হয়েছে আরও ৪৩ লাখ ভোটার, যারা আগামী বছরের শেষদিকে একাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোট দিতে পারবেন। নয় কোটি নাগরিকের হাতে স্মার্ট কার্ড দেওয়ার প্রক্রিয়ার মধ্যে ২০১২ সালের পর থেকে নিবন্ধিত সব মিলিয়ে প্রায় সোয়া কোটি ভোটারকে পর্যায়ক্রমে লমিনেটেড কার্ড বিতরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ইসি।

বিডি২৪লাইভ/ওয়াইএ

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: