সম্পাদনা: খায়রুল ইসলাম রাজিব

ডেস্ক এডিটর

নিউ ইয়র্কে আ’লীগের মতবিনিময় সভা 

‘কোন চ্যালেঞ্জকেই আর চ্যালেঞ্জ মনে করে না বাংলাদেশ’

২৬ এপ্রিল, ২০১৮ ২২:৪৪:১০

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, কোন চ্যালেঞ্জকেই আর চ্যালেঞ্জ মনে করে না বাংলাদেশ। স্বাধীনতার পর যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন পররাষ্ট্রসচিব হেনরি কিসিঞ্জারের ‘বাংলাদেশ তলাবিহীন ঝুঁড়ি’ কথাটি এখনো বাংলাদেশের মানুষকে ব্যথিত করে কিন্তু বাংলাদেশ যে তলাবিহীন ঝুঁড়ি নয় তা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রমাণ করে দেখিয়ে দিয়েছেন। আজ যেদিকেই তাকাবেন সেদিকেই শুধু উন্নয়ন আর সফলতাই দেখতে পাবেন।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নিউ ইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের একটি রেস্তোরাঁয় যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীগ আয়োজিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বের ১০০ জন প্রভাবশালী নেতাদের অন্যতম এবং বিশ্বের দ্বিতীয় শ্রেষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ায় আনন্দ সমাবেশ ও মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি। একই দিনে বিভক্ত যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপের পৃথক দু’টি সভায় যোগ দেন তিনি। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা বাংলা প্রেস।

জাতিসংঘে ‘শান্তি বিনির্মাণ ও টেকসই শান্তি’ শীর্ষক উচ্চপর্যায়ের সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিনিধি হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র সফররত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল দু’গ্রুপে বিভক্ত যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের নেতাকর্মিদের উদ্দেশ্য বলেন, তিনি দেশের প্রতিটি জেলার বিভিন্ন অঞ্চল ঘুরে বেরিয়ে দেখেছেন বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আকাশ্চুম্বী জনপ্রিয়তা রয়েছে। তাঁর এ জনপ্রিয়তাকে ধরে রাখার জন্য প্রবাসের সকল নেতাকর্মিদের ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহবান জানান তিনি। এসময় উপস্থিত ক্ষুব্ধ নেতাকর্মিরা যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের বর্তমান সভাপতি সিদ্দিকুর রহমানের বিরুদ্ধে দলীয় অনিয়ম, স্বেচ্ছাচারিতা ও দলের নাম ভাঙ্গিয়ে অর্থ অপার্জনের বিরুদ্ধে নানা শ্লোগান দেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, লাখে লাখে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠিরা যখন বাংলাদেশে প্রবেশ করছিল তখন রক্তে রঞ্জিত হয়ে উঠেছিল নাফ নদী। বঙ্গোপসাগরে ভাসছিল শত শত লাশ। এ দৃশ্য দেখে গোটা বিশ্ববাসী হতচকিত হলেও প্রধানমন্ত্রী তাঁর সিদ্ধান্তে বলেন ওদেরকে আসতে দাও। এটা যে কতবড় একটা চ্যালেঞ্জ ছিল তা বোঝানো মুসকিল। একজন দুঃসাহসিক নেতা হলে এতবড় একটা দুঃসাহসিক সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব হতো না।

আসাদুজ্জামান খান কামাল আরো বলেন, আমি ব্যক্তিগতভাবেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলাম আপনি দয়া করে কুতুপালং শরনার্থী শিবিরের দিকে আসবেন না। এখানে গোলাগুলি হচ্ছে। হেলিকপ্টার দিয়ে রোহিঙ্গাদের তাড়া করে বেড়াচ্ছেন মিয়ানমারের সেনাবাহিনীরা। কিন্তু তিনি আমাদের সেই কথা উপেক্ষা করে কুতুপালং শরনার্থী শিবির গিয়েছিলেন স্বচক্ষে রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখতে। সেখানে তিনি জড়িয়ে ধরেছেন সেইসব মানুষদের যারা সবকিছু হারিয়ে পালিয়ে এসেছিলেন বাংলাদেশে। এ সময় তিনি নিজেও কেঁদেছেন এবং বিশ্ববাসীদেরকেও কাঁদিয়েছেন।

দু’টি সভায় সাংবাদিক মাহফুজুর রহমান ও মোহাম্মদ আলমগীর বাংলাদেশে আইনশৃংখলা বাহিনীর হাতে গণমাধ্যমকর্মিদের উপর নির্যাতন ও সংশ্লিষ্টের বিচারের দাবি জানালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল উত্তরে বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে গণমাধ্যমে স্বাধীনতা রয়েছে বর্তমান সরকারের আমলে। বাংলাদেশ বর্তমানে ৩০টির মত টিভি চ্যানেল এবং ৬ শতাধিক সংবাদপত্র প্রকাশিত হয়ে থাকে। সরকারি লোকজন মধ্যরাতে গিয়ে কখনো কাউকে বাধা দেয়নি যে এ সংবাদটি ছাপানো যাবে না।

গণমাধ্যমকর্মিদের উপর নির্যাতনকারী অভিযুক্তদের প্রমাণ সাপেক্ষে বিচার করা হবে বলে আশ্বাস দিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বর্তমান শেখ হাসিনার সরকারের আমলে বাংলাদেশে সংঘটিত কোন অপরাধমূলক ঘটনার তদন্ত ও বিচার হয়নি এমন কোন নজির নেই। কোন অপরাধীদেরই ছাড় দেওয়া হয়্না। পুলিশ, সংসদ সদস্য কিংবা ব্যবসায়ী হোক অপরাধ করে কেউই রেহাই পাবেন না। আইন সবার জন্যই সমান। অন্যায়ের গুরুত্ব অনুযায়ী তাদেরকে শাস্তি পেতেই হবে। একটু অপেক্ষা করুন। ধৈর্য্য হারাবেন না।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের কার্যকরী কমিটির সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা সরাফ সরকারের সভাপতিত্বে এবং আ. লীগ নেতা কাজী কয়েস এর সঞ্চালনায় উক্ত সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিব)এর যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক ডা. উত্তম কুমার বড়ুয়া।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা ড. মহসিন আলী, ড. প্রদীপ রঞ্জন কর, ডা. মাসুদুল হাসান, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড.শাহ বখতিয়ার, রমেশ নাথ, নিউ ইয়র্ক মহানগর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক ইমদাদুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বাতেন, কাজী কয়েস, রেজাউল করিম, সিটি আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শাহীন আজমল, সাইকুল ইসলাম, দরুদ মিয়া রনেল, মোহাঃ নাসির, সেলিম খান, কামাল আহমেদ, ইলিয়াস খসরু, সাহাব উদ্দিন চৌধুরী, জামশেদ আহমেদ, জাকারিয়া মাসুদ, নুরুল ইসলাম নজরুল,ইসমত হক খোকন, এন আমিন, শাহীন ইবনে দেলোয়ার, ফারুক আহমেদ, রশিদ রানা, তোফাজ্জল ইসলাম, ফকর উদ্দিন, শফি উদ্দিন তালুকদার, বিষ্ণু সরকার, মইনুল রহমান সোহেব, জিয়াউর রহমান, নাসির উদ্দিন চৌধুরী, আব্দুল খালেক, শিমুল হাসান, মিসবা আবেদীন, সাব্বির আহমেদ, ফখরুল ইসলাম, মোহাম্মদ এনাম, এনায়েত হোসেন জামাল, জেড এ জয়, আতাউর রহমান কামাল, কায়কোবাদ খান, দিলোয়ার হোসেন মোল্লা, তারিকুল হায়দার চৌধুরী,আতিকুর রহমান সুজন, আব্দুল ওয়াহেদ, আমিনুল হোসেন, স্বপন কর্মকার, শাহ রহিম শ্যামল, গিয়াস উদ্দিন, বজলুর রশিদ চৌধুরী, নিজাম উদ্দিন, রাসেল মালিতা, সাজেদুর রহমান সাজু, আনোয়ার হোসেন, ওমর ফারুক, সৈয়দ মুনির আখতার মুরাদ, রায়হানুল রহমান, রবিউল হোসেন, ও মাহামুদুল হাসান টুটুল এ সময় উপস্থিত ছিলেন। একই দিন রাতে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের আরো একটি সভায় যোগ দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমানের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভা পরিচালনা করেন ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ। এ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আবুল কাশেম, লুৎফর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আইরীন পারভীন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মহিউদ্দিন দেওয়ান, ফারুক আহমেদ, কৃষি সম্পাদক আশরাফুজ্জামান, ত্রান সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম, প্রবাসী কল্যান সম্পাদক সোলায়মান আলী, সদস্য শামসুল আবেদীন, মেজবা আহমেদ, সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি কবীর আলী, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতা জামাল হোসেন, যুক্তরাষ্ট্র শ্রমিক লীগের সভাপতি আজিজুল হক খোকন, মুক্তিযোদ্ধা মাসুদুল হাসান, সাউথ জার্সি মেট্রো আওয়ামী লীগের সভাপতি সামসুল শাহজাহান, যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সভাপতি আবদুল মুকিত চৌধুরী, নিউইয়র্ক আওয়ামী ফোরামের মোহাম্মদ হারুন, ব্রুকলিন ব্যুরো আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল ইসলাম নজরুল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক শাখাওয়াত বিশ্বাস, নিউইয়র্ক স্টেট আওয়ামী লীগের রফিকুল ইসলাম, আলমগীর হোসেন, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক আব্দুল মালেক, যুবলীগ নেতা সেবুল মিয়া, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের মেজবাহ আহমেদ প্রমুখ।

বিডি২৪লাইভ/আরআই

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: