প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

সম্পাদনা: আরাফাত হোসেন রবিন

ডেস্ক এডিটর

জেলে বসে যা বললেন খালেদা জিয়া

১৭ মে, ২০১৮ ২৩:০৪:০০

পবিত্র রমজানের শুরুতে দেশবাসী ও দলের নেতাকর্মীদের রমজানুল মোবারকের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন খালেদা জিয়া। এছাড়া দেশবাসীর কাছে তিনি দোয়াও চেয়েছেন বলেও জানিয়েছেন বেগম জিয়ার আইনজীবী খন্দকার মাহবুব।

বৃহস্পতিবার (১৭ মে) রাজধানীর পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে বেগম জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাতের পর তিনি এসব কথা বলেন।

খন্দকার মাহবুব সাংবাদিকদের জানান, কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, তাকে কারাগারে রেখে ৫ই জানুয়ারির মতো আরেকটি নির্বাচন করতে চায় সরকার।

খন্দকার মাহবুব বলেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ভালো নেই, খুব খারাপ। তিনি ব্যথায় প্রচণ্ডভাবে কষ্ট পাচ্ছেন। তাকে সুচিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না।

তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে যেসব মামলায় শ্যোন অ্যারেস্ট দেখানো হচ্ছে সেগুলোর বিষয়ে আলোচনা করতে কারাগারে এসেছিলেন তারা। ওই সব মামলার বিষয়ে বিশদ আলোচনা করেছেন। তবে সরকারের সদিচ্ছা না থাকলে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা সম্ভব নয়।

মাসুদ আহমেদ তালুকদার বলেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে বর্তমানে ৬টি মামলায় শ্যোন অ্যারেস্ট রয়েছে। খালেদা জিয়া আগের থেকে অনেক বেশি দুর্বল হয়ে পড়েছেন। চলাফেরা করতে প্রচণ্ড কষ্ট হচ্ছে। তিনি রোজা রাখবেন। কিন্তু শারীরিকভাবে অসুস্থ হওয়ার কারণে তাকে ইউনাইটেড হাসপাতালের মতো বিশেষায়িত জায়গায় চিকিৎসা সুবিধা দিলে এই রমজানে একটু ভালো লাগতো বলে তিনি তাদের জানিয়েছেন।

এর আগে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে কারাগারে যান খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে যান- খন্দকার মাহবুব, অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী, অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার ও অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া।

উল্লেখ্য, গত ৮ই ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় ঘোষণা করেন ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মো. আখতারুজ্জামান। রায়ে খালেদা জিয়াকে ৫ বছর এবং অন্য আসামিদের ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেন আদালতের বিচারক।

পাশাপাশি আসামিদের ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা অর্থদণ্ড দেন আদালত। রায়ে আদালত উল্লেখ করেন, অভিযোগ প্রমাণিত হলেও খালেদা জিয়ার সামাজিক ও শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে তাকে ৫ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। রায়ের পর থেকে খালেদা জিয়াকে রাখা হয়েছে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে।

বিডি২৪লাইভ/এএইচআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: