ফাতেমা তুজ জোহুরা

ডেস্ক কন্ট্রিবিউটর

বাক্সের মাঝে মিলল ৫২০০০ ডলার, এরপর...

১৭ মে, ২০১৮ ২৩:০৮:০৫

স্টেটেন দ্বীপে এক দম্পতি তাদের বাড়ির পিছনের অংশে কিছু কাজ করাচ্ছিলেন কিন্তু ভাগ্যক্রমে তারা সেখানে বিশাল ধনসম্পত্তি আবিস্কার করেন। মারিয়া কোলোনো ইমানুয়েলের স্বামী ম্যাথিউ বলেন যে, একটি নিরাপদ স্থানে এই বক্স দেখতে পান তিনি এবং ঠিক যেন এক শৈশবের স্মৃতির স্বপ্ন সত্যি হয়ে আসছে।

তাদের বাড়ির পেছনের অংশের বাগানের গাছ হরিণ এসে খেয়ে ফেলত, তাই তারা বাউন্ডারি দিয়ে সেখানে আরও কিছু গাছপালা রোপণ করতে চাইছিলেন। তখনি তারা সেখানে এক কেবল বাক্স আবিস্কার করেন। কিন্তু মজার বিষয় হল, হরিণগুলো এই বাক্সের কোন ক্ষতি করেনি।

তারা একটি গাছ কোম্পানী আনেন, এবং এরপরে তারা বুঝতে পারেন যে বাক্সের ভিতরে কোন তারের অংশ নেই। সেখানে নগদ কিছু অর্থ এবং গয়না ছিল। নিরাপদে থাকা সেই বাক্সে, এই দম্পতি ৫২,০০০ ইউ এস ডলার, হিরা, রুবি এবং আরো অনেক কিছু ভঙ্গুর বিল খুঁজে পায়। ম্যাথিউ বলেন, শত শত গয়নার পাশাপাশি এই ব্যাগে আছে, হীরা, বিয়ের আংটি, ডজন খানেক রিং, জেড সঙ্গে স্বর্ণ । এটা অত্যাশ্চর্য ছিল।

ইমানুয়েলস আরও কিছু উপকরণের পাশাপাশি একটি ঠিকানাসহ কাগজের একটি টুকরা পান। তারপর সেই ঠিকানার বিষয়ে খোঁজ লাগানোর পর সেই দম্পতি জানতে পারেন, তাদের ব্লকের একটি বাড়ির সাথে এই ঠিকানা মিলেছে। তাই তারা তাদের প্রতিবেশীদের এই বিষয়ে জানানোর জন্য অগ্রসর হন।

তারপর ম্যাথিউ তার প্রতিবেশীর বাসায় নক করেন এবং তাদের জিজ্ঞেস করেন যে, তারা কখনও ডাকাতির শিকার হয়েছেন কিনা, এবং তারা বলেছিল যে তারা ডাকাতির শিকার হয়েছিল।

এনওয়াইপিডি নিশ্চিত করেছে যে ২০১১ সালে সেই বাসায় লুটপাট করা হয়েছিল, যার মধ্যে নগদ ৫২০০০ ডলার চুরি হয়েছিল। ম্যাথিউ সবকিছু তাদের প্রতিবেশীকে ফেরত দেয়, এতে তাদের প্রতিবেশী খুব কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

এই ঘটনার পর কয়েকজন লোক তাদের জিজ্ঞেস করেছিল, কেন তারা এসব ফেরত দিতে গেল। এতে মারিয়া বলেন, এটা তো তাদের ছিলই না, তাহলে এই প্রশ্ন আসল কোথা থেকে? এই বিষয়ে সেই দম্পতি যোগ করেন, তারা এতে কোন পুরস্কার পায়নি, কিন্তু সত্যিকারের পুরস্কার হল ভালো কর্ম।

বিডি২৪লাইভ/এফটিজে/এমআর

বিডি টুয়েন্টিফোর লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মতামত: